সাঁকো এবং একটি নীলপরী-১

সাঁকো এবং একটি নীলপরী-১

সাইফা খালা ঝুম মেরে বসে
আছেন ।তিনি আমাকে কিছু
উপদেশমূলক ধুলাষ্টিং
দেওয়ার জন্য নিজেকে
প্রস্তুত করে নিচ্ছেন ।
আমি তার দিকে আগ্রহ নিয়ে
তাঁকিয়ে আছি ।কারণ শ্রোতারা
আগ্রহী না হলে বক্তারা
বক্তব্য দিয়ে মজা পান না ।
এবার খালা আমার দিকে
মনোযোগী হলেন ।
আমি বললাম .খালা কেমন আছেন ?
-আমি কেমন আছি .সেটা
তোকে জানতে হবেনা ।আর
তুই আমাকে তুমি করে বলবি ।
-আমি বললাম ,আপনি আমার
গুরুজন ।আপনাকে তুমি করে
বললে .গুনাহ্ হবে ।
-সারাদিন এক ওয়াক্ত নামাজ
পড়িসনা ।আবার গুনাহ্ !!
আমি যা বললাম তাই করবি ।
আপনি টা অতি ভক্তি ।অতি
ভক্ত ভাল না ।তুমি করে বল
আমি কিছু মনে করবোনা ।
-জ্বী খালা তুমি করে বলবো ।
-তোর কি জীবনের কোন
লক্ষ্য নাই ??
-লক্ষ্য ছাড়া কি জীবন আছে ?
-আমি যা বলছি ,তা পট পট
করে উত্তর দিবি ।কোন
প্যাঁচাবিনা ।আমি প্যাঁচমোচর
পছন্দ করিনা ।
-জ্বী আচ্ছা খালা ।আমি আর
প্যাচাবোনা ।
-জ্বী ,আচ্ছা খালা এটা আবার
কেমন কথা !
-এটা খাঁটি বাংলা ভাষা ।
-দ্যাখ সাঁকো ,আমার সাথে
ফান করার চেষ্টা করবিনা ।
-আমি বললাম ,আচ্ছা আমি আর
ফান করবোনা ।
-তুই জানিস ,তোর বাবা তোকে
নিয়ে কত টেনশন করে ।
না ।জানিনা !!
-তা তো জানবিই না ।তুই শুধু
জানবি কিভাবে মানুষকে
বোকা বানাতে হয় !!
-আচ্ছা খালা ,এটা জানার কি
আছে ?টেনশন করতে তো
আর টাকা লাগেনা ।শুধু
একটু সময় লাগে । আচ্ছা ,
ধরো যদি এরকম হতো প্রতিমিনিট
চিন্তা বা টেনশন করতে একশ টাকা
করে লাগে । আর মাত্র পাঁচ
মিনিট টেনশনে লাগে পাঁচ’শ টাকা
তাহলে কি কেউ
টেনশন করতো ?
-সাঁকো .তোর এসব অদ্ভূদ
চিন্তা ভাবনা কোথেকে আসে ?
যত্তসব ফাউল লজিক ।
-মোটেওনা ।আমাকে বসিয়ে
রেখে তুমি কি যেন ভাবছিলে
যদি প্রত্যেক মিনিটে তোমার
ক্রেডিট কার্ড থেকে ৫০০টাকা করে
খোঁয়া যেত তাহলে কি তুমি
ভাবতে ?
-সাইফা খালা উচ্চস্বরে বললেন ,
সাঁকো তুই চুপ করবি ।
-হুম আমি চুপ করলাম ।
-শোন .তোর জন্য সুখবর আছে !
-আমি বললাম ,খালা কি সুখবর ?
-তোর জন্য একটা মেয়ে
দেখছি !দেখলে তো তুই
তবদা খেয়ে পড়ে যাবি ।
> > >
ছোট বেলা বাবার হাতে থাপ্পড়
খেয়ে তবদা খাইছিলাম ।কিন্ত
মেয়ে দেখে তবদা খায় এটা
আজ ই প্রথম শুনলাম ।
আমি একটু বিস্মিত হয়ে বললাম ,
তাইনাকি ?
-আরে কি বলিস !ওটা তো মেয়ে
না ।আমার মনে হয় ,হুর-পরী !
* *
পরীদের মধ্যে অনেক পরী আছে ।
যেমন .নীল পরী .লাল পরী আবার
কালো পরী ও আছে ।হুর পরী
আছে কি না সেটা আমার
জানা নেই । এবার একটু বেশীই
অবাক হয়ে বললাম .হুর পরী !!
-সাইফা খালা বললেন .আমি
জানি আমার কথা তোর
বিশ্বাস হবেনা ।সামনে সপ্তাহে
বাসায় আসবে তখন
স্ব-চক্ষে দেখিস !
-আমি বললাম , হুর পরী
কি তোমাদের বাসায় এসে থাকবে ?
-আরে মূল ঘটনা শোন .আমার
ছোট বেলার বান্ধবী মমতার
মেয়ে’র কথা বলছি !কি যে
কিউট তোকে কিভাবে বুজাবো ?
নীল জামা’য় নীল পরীর মতো
লাগে ।আবার হলুদ জামায়
হুর-পরীর মতো লাগে এবার
বুঝছিস !
-হুম বুঝছি ।
-ওর পরীক্ষা শেষ ।ও ঢাকায়
এসে কিছুদিন থাকবে ।
বিনোদনকেন্দ্রগুলো ঘুরে ঘুরে
দেখবে ।আর ছবি তুলবে ।
-এখন .আমাকে কি করতে হবে ?
-সাইফা খালা বললেন ,আমি চাচ্ছি ।
তুই ওকে নিয়ে ঘুরে বেড়াবি ।
-সরি খালা ।এসব মেয়ে ঝামেলার
মধ্যে আমি নাই ।
-আমি যা বলছি .তা মন দিয়ে শোন
ঐ মেয়েটার নাম মৌনী ।
ওর সাথে ঘুরবি .ছবি তুলবি .
প্রয়োজন পটিয়ে পাটিয়ে
প্রেম করবি ।তারপর আমি
কাজি ডেকে বিয়ে পড়িয়ে দেব ।
ব্যস ।
-খালা তুমি যতসহজ ভাবছো ! অতটা
সহজ না কিন্তু !!
-সহজ না কঠিন সেটা পরের
ব্যপার ।এখন বল কি খাবি ?
ভাত খাব ।একটা ডিম ভেঁজে
দিও সাথে দুটা কাচা মরিচ ।
তারপর একটা কফি
অথবা চা ।
-আচ্ছা ।তুই বসে থাক ! আমি রেডি
করছি ।
* *
আমি সোফায় বসে টিভি দেখছি !
ইদানীং টিভি দেখতেই ইচ্ছে
করেনা ।টিভি তে একটা অনুষ্ঠান
ভাল লাগলে ঘন ঘন বিজ্ঞাপন
দিয়ে আকর্ষন নষ্ট করে ফেলে ।
যাক এখন আর টিভি দেখব
না ।এখন একটু ভাবনায় নিমজ্জিত
হয় ।ভাবনার মূল টপিকটায়
থাকবে , নীল পরী
আর হুর-পরী ।
——-
এখন আপাতত এটুকুতে থাক। অন্য পর্বে কথা হবে।
………………
লিখা: ‘বিভী ষিকা’

Share:

Leave a Reply

All rights reserved by Kid Max.